Sunday, September 19, 2021

৩৩৮ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ইভ্যালির বিরুদ্ধে


ব্যবস্থা নিতে স্বরাষ্ট্র সচিবের কাছে চিঠি
ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির বিরুদ্ধে ক্রেতার কাছ থেকে আগাম টাকা নিয়ে সময়মতো পণ্য সরবরাহ না করার অভিযোগ অনেক দিনের। সময়মতো পণ্য না পেয়ে ক্রেতা টাকা ফেরত চাইলেও কোম্পানিটি দিচ্ছে না। অথচ সাইক্লোন, আর্থকোয়েক ইত্যাদি চটকদার নামে আকর্ষণীয় অফার দিয়ে পণ্য বিক্রি করছে ইভ্যালি। এ অবস্থায় গ্রাহক স্বার্থ ও ই-কমার্স খাতের ভাবমূর্তি রক্ষায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ইভ্যালির বিষয়ে তদন্ত করতে কেন্দ্রীয় ব্যাংককে অনুরোধ করে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তদন্তে বেরিয়ে আসে গ্রাহক ও মার্চেন্টদের কাছ থেকে অগ্রিম নেওয়া ৩৩৮ কোটি টাকা ইভ্যালির আত্মসাৎ কিংবা অবৈধভাবে সরিয়ে ফেলার আশঙ্কার কথা। এ পরিস্থিতিতে গত ৪ জুলাই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে প্রতিকারমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।
বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিবের কাছে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছেÑ ইভ্যালি গ্রাহক ও মার্চেন্টদের কাছ থেকে অগ্রিম নেওয়া ৩৩৮ কোটি টাকা আত্মসাৎ কিংবা অবৈধভাবে সরিয়ে ফেলার আশঙ্কা রয়েছে। এ অবস্থায় বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনের আলোকে ইভ্যালির বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক আর্থিক অনিয়ম পাওয়া গেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তদন্তে দেখা গেছেÑ গত ১৪ মার্চ শেষে ইভ্যালির মোট দায় (প্রতিষ্ঠানটির কাছে পণ্য সরবরাহকারী ও ক্রেতাদের
পাওনা) ৪০৭ কোটি ১৮ লাখ টাকা। এর মধ্যে যেসব প্রতিষ্ঠান থেকে ইভ্যালি পণ্য নিয়ে ক্রেতাদের সরবরাহ করে, সেই মার্চেন্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর পাওনা ১৮৯ কোটি ৮৫ লাখ টাকা। আর ইভ্যালি ক্রেতাদের পণ্য দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে আগাম নিয়েছে ২১৩ কোটি ৯৪ লাখ টাকা। কিন্তু ওই দিন পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটির কাছে সম্পদ (বিভিন্ন মালপত্র ও অন্যান্য বস্তু) ছিল ৯১ কোটি ৫৯ লাখ টাকার। এর মধ্যে বিভিন্ন পণ্য ছিল ৬৫ কোটি ১৭ লাখ টাকার, যা ক্রেতাদের দেওয়া যেতে পারে। অর্থাৎ ইভ্যালি যত ক্রেতার থেকে আগাম টাকা নিয়েছে, তাদের মধ্যে মাত্র ১৬ শতাংশ গ্রাহককে পণ্য সরবরাহ করার বা টাকা ফেরত দেওয়ার সক্ষমতা রাখে। বাকি গ্রাহক ও মার্চেন্টের পাওনা পরিশোধ করা ওই কোম্পানির পক্ষে সম্ভব নয়।
তদন্তে আরও দেখা গেছে, বর্তমানে ইভ্যালির গ্রাহক প্রায় ৪৫ লাখ। এই বিপুলসংখ্যক গ্রাহক লোকসানে পড়লে বা প্রতারিত হলে পুরো ই-কমার্স খাতে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। এমনকি অনেক মার্চেন্ট পথে বসে যেতে পারে। এ জন্য প্রতিষ্ঠানটির গ্রাহকরা যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হন, সে জন্য তদন্তের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি যেসব গ্রাহক টাকা দিয়ে পণ্য বা টাকা কোনোটাই পাননি, তাদের ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরে অভিযোগ জানানোর অনুরোধ করা হয়েছে।
এ বিষয়ে ইভ্যালির সিইও মোহাম্মদ রাসেলের সঙ্গে আমাদের সময়ের পক্ষ থেকে ফোনে যোগাযোগ করা হলেও তিনি কোনো সাড়া দেননি।

Related Articles

ধারাবাহিক : পলাশ রাঙা দিন

নুসরাত রীপা পর্ব-১৬ তুলির বিয়েতে মীরা আসবে না শুনে বিজুর খুব মন খারাপ । মীরাকে মায়ের কলিজা বলে মা কে ক্ষ্যাপালেও মীরাকে ও আপন বোনের মতোই...

প্রকৃতিকন্যা সিলেট- নয়নাভিরাম রাতারগুল

মিলু কাশেম অপরূপ প্রকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি আমাদের বাংলাদেশ।নদ নদী পাহাড় পর্বত হাওর বাওর সমুদ্র সৈকত প্রবাল দ্বিপ ম্যানগ্রোভ বন জলজ বন চা বাগানসহ পর্যটনের নানা...

হাওড়ে প্রেসিডেন্ট রিসোর্টের জমকালো উদ্বোধন

দুই নায়িকা নিয়ে জায়েদ খান মিশা ডিপজল রুবেল হেলিকপ্টারে চড়ে কিশোরগঞ্জের মিঠামইন হাওরে প্রেসিডেন্ট রিসোর্ট উদ্বোধন করতে এসেছিলেন চিত্রনায়ক জায়েদ খান, জনপ্রিয় খল অভিনেতা মিশা...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

22,042FansLike
0FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -

Latest Articles

ধারাবাহিক : পলাশ রাঙা দিন

নুসরাত রীপা পর্ব-১৬ তুলির বিয়েতে মীরা আসবে না শুনে বিজুর খুব মন খারাপ । মীরাকে মায়ের কলিজা বলে মা কে ক্ষ্যাপালেও মীরাকে ও আপন বোনের মতোই...

প্রকৃতিকন্যা সিলেট- নয়নাভিরাম রাতারগুল

মিলু কাশেম অপরূপ প্রকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি আমাদের বাংলাদেশ।নদ নদী পাহাড় পর্বত হাওর বাওর সমুদ্র সৈকত প্রবাল দ্বিপ ম্যানগ্রোভ বন জলজ বন চা বাগানসহ পর্যটনের নানা...

হাওড়ে প্রেসিডেন্ট রিসোর্টের জমকালো উদ্বোধন

দুই নায়িকা নিয়ে জায়েদ খান মিশা ডিপজল রুবেল হেলিকপ্টারে চড়ে কিশোরগঞ্জের মিঠামইন হাওরে প্রেসিডেন্ট রিসোর্ট উদ্বোধন করতে এসেছিলেন চিত্রনায়ক জায়েদ খান, জনপ্রিয় খল অভিনেতা মিশা...

মৎস্য খাতে অর্জিত সাফল্য ও টেকসই উন্নয়ন

ড. ইয়াহিয়া মাহমুদমৎস্যখাতের অবদান আজ সর্বজনস্বীকৃত। মোট দেশজ উৎপাদন বা জিডিপিতে মৎস্য খাতের অবদান ৩.৫০ শতাংশ এবং কৃষিজ জিডিপিতে ২৫.৭২ শতাংশ। আমাদের দৈনন্দিন খাদ্যে...

জলাশয় সংস্কারের মাধ্যমে মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে বহুগুণ

মৎস্য উৎপাদনে যুগান্তকারী সাফল্য অর্জন করেছে বাংলাদেশ। পরিকল্পনা মাফিক যুগোপযোগী প্রকল্প গ্রহণ করায় এই সাফল্য এসেছে। মাছ উৎপাদন বৃদ্ধির হারে সর্বকালের রেকর্ড ভেঙেছে বাংলাদেশ।...