Sunday, September 19, 2021

ভয়াবহ মৃত্যুর দায় কার

সময় যতই গড়াচ্ছে নারায়ণগঞ্জের মসজিদে বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা ততই বাড়ছে। পুড়ে অঙ্গার হওয়া মানুষগুলোর অনেকেই যন্ত্রণায় ছটফট করে মারা যাচ্ছেন অবশেষে। বাড়ছে স্বজন হারাদের কান্নার রোল। শনিবার রাত ৯টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বিস্ফোরণের ওই ঘটনায় রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন ২০ জন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় মৃত্যু যন্ত্রণা নিয়ে সময় পার করছেন এখনও ১৭ জন। ভয়াবহ বিস্ফোরণে এত সংখ্যক মুসল্লির করুণ মৃত্যুতে শনিবার গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ
করেছেন  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
এলাকায় গিয়ে জানা গেছে, মসজিদে এসি বিস্ফোরণ থেকে এমন ভয়ঙ্কর মৃত্যুর জন্য কে বা কারা দায়ী তা নিয়েই চলছে আলোচনা-সমালোচনা। এমন ভয়াবহ মৃত্যুর জন্য তিতাসের স্থানীয় কর্মকর্তাদের গাফিলতি বা দায়িত্বহীনতাকেও দোষারোপ করা হচ্ছে। কেউ কেউ ঘটনাটিকে নাশকতা কি না তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন। স্বয়ং স্থানীয় সংসদ সদস্য (এমপি) শামীম ওসমান গতকাল ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে বলেছেন, ‘আল্লাহর ঘর মসজিদে বিস্ফোরণ কোনো নরমাল ঘটনা মনে হচ্ছে না। ঘটনাটি নাশকতা না তাও বলা যাবে না।’ তবে প্রকৃত ঘটনা কী বা বিস্ফোরণের কারণ জানতে জেলা প্রশাসন, তিতাস গ্যাস ও ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের পক্ষ থেকে পৃথক তিনটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ ছাড়া লাশ দাফনের জন্য গতকাল জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২০ হাজার টাকা এবং আহতদের চিকিৎসার জন্য ১০ হাজার টাকা করে দেওয়ার কথা জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন। এরই মধ্যে অন্তত ১৬ জনের লাশ তাদের স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। বেশ কয়েকজনের লাশ গতকাল বিকালে নারায়ণগঞ্জেই বিপুল মুসল্লির অংশগ্রহণে জানাজা শেষে দাফন করা হয়েছে।
হতাহতদের বাসায় কান্নার রোল : হতাহতদের স্বজনদের আহাজারিতে পুরো তল্লা এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসছে। তল্লা জেমস ক্লাব এলাকা দিয়ে হাঁটলেই বাড়িঘর থেকে ভেসে আসছিল কান্নার রোল। কে কাকে সান্ত্বনা দেবেন। এলাকার প্রায় সব বাসায়ই এখন এমনই পরিস্থিতি বিরাজ করছে। একদিকে স্বজন হারানো বা স্বজনের গুরুতর আহত হওয়ার বেদনা। অন্যদিকে আহত ও নিহতদের পরিবারের প্রায় সবাই নিম্ন আয়ের মানুষ। নিহতদের অনেকেই ছিলেন পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। ফলে এ দুর্ঘটনার শোক ছাড়াও পরিবার কীভাবে চলবে এ নিয়েও আতঙ্কে স্বজনরা।
বাইতুস সালাহ জামে মসজিদ থেকে প্রায় ৫শ গজ দূরে তল্লা খামারবাড়ী এলাকায় একটি টিনশেড রুম নিয়ে ভাড়া থাকেন ডেকোরেটর কর্মচারী স্বপন মিয়া। তার তিন ছেলে মেয়ের মধ্যে মেজো সিফাত ওরফে রিফাত এবার এসএসসি পাস করেছে। কিন্তু সিফাতকে কলেজে ভর্তি করানো সামর্থ্য ছিল না পরিবারের। কলেজে ভর্তি হওয়ার টাকা জোগাড় করতে সিফাত একটি গার্মেন্টস কারখানায় কাজ নিয়েছিল। কিন্তু শুক্রবার রাতে মসজিদে নামাজ পড়তে গিয়ে বিস্ফোরণে পুড়ে মারায় গেল সম্ভাবনাময় এই শিক্ষার্থী। চিৎকার করে কাঁদতে কাঁদতে সিফাতের মা বলছিলেন, ‘খেয়ে না খেয়ে দিন কাটাই। তবুও ছেলেটার জন্য আশায় বুক বাঁধছিলাম। এখন আমাদের কী হবে? কোথায় পাব আমার বুকের মানিককে।’
শুক্রবার রাতে এশার নামাজ পড়তে যাওয়ার সময় মা গার্মেন্টস কর্মী রহিমা বেগম জোর করেই শিশুপুত্র জুবায়েরকে বাবার সঙ্গে মসজিদে পাঠান। বিস্ফোরণে শিশু জুবায়েরের মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে তার বাবা গার্মেন্টস কর্মী জুলহাস। কাঁদতে কাঁদতে রহিমা বলছিলেন, ‘আমি জোর করে না পাঠালে আমার ছেলেটা মরত না গো।’
বিস্ফোরণে দুই ছেলেকে হারিয়ে পাগলপ্রায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের কর্মচারী নুরুদ্দিন। বড় ছেলে সাব্বির তোলারাম কলেজে অনার্স এবং ছোট ছেলে জুবায়ের একই কলেজের এইচএসসি সেকেন্ড ইয়ারের ছাত্র ছিল। তার দুই ছেলে এক মেয়ে। ছেলেমেয়েদের মানুষ করতে প্রেসক্লাবের চাকরির পাশাপাশি কখনও ফুটপাথে দোকানদারি কখনও রিকশা চালিয়েছে নুরুদ্দিন। ছেলেরা সংসারের হাল ধরলে পরিশ্রম থেকে কিছুটা রেহাই পাবেন এমন আশায় ছিলেন নুরুদ্দিন। কাঁদতে কাঁদতে তিনি বললেন, ‘ছেলেরা আমাকে চিরতরে রেহাই দিয়ে চলে গেল।’ হতাহতদের সবার পরিবারের পারিপাশির্^ক অবস্থায় যে কতটা করুণ তা সহজের অনুমান করা যায়। কেবল হতাহতদের পরিবার নয়, তাদের আত্মীয়স্বজন, প্রতিবেশী তথা সারা দেশেই নারায়ণগঞ্জের এই করুণ মৃত্যুতে শোক বিরাজ করছে।
বিস্ফোরণের দায় নিয়ে যত কথা : বাইতুস সালাত জামে মসজিদে এসি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটার কথা বলা হলেও ভেতরে গ্যাস জমে থাকার অভিযোগ তুলে এর জন্য তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষের অবহেলাকে দায়ী করেছেন এলাকাবাসী। তাদের অভিযোগ, তিতাস আগে থেকে উদ্যোগ নিলে এমন ভয়ঙ্কর ঘটনা ঘটত না, এতটা প্রাণহানিও দেখতে হতো না। আবার কেউ কেউ মসজিদ কমিটির অবহেলাকেও দায়ী করেছেন।
মসজিদ কমিটির সভাপতি ও ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য আবদুল গফুর বলেন, তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষের অবহেলার কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। সপ্তাহখানেক আগে গ্যাস লিকেজের বিষয়টি তারা তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষের ঠিকাদারকে জানিয়েছিলেন। ওই সময় ঠিকাদার ৫০ হাজার টাকা চেয়েছিলেন। সেই টাকা জোগাড় করার আগেই দুর্ঘটনা ঘটে গেল।
এদিকে ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে প্রাথমিকভাবে জানান, তিতাস গ্যাসের পাইপলাইনের লিকেজের ফলে জমে থাকা গ্যাস থেকে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় একাধিক বাসিন্দাও বলেছেন, মসজিদে গেলে প্রায়ই তারা গ্যাসের গন্ধ পেতেন। এক মাসের বেশি সময় ধরে গ্যাসের এই লিকেজের সমস্যা চলছে।
স্থানীয় অনেকে বলেন, টানা বৃষ্টির পর থেকে গ্যাসের বুদ্বুদ দেখা দেয়। তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো হয়। কিন্তু কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। মসজিদ কমিটিও বিষয় গুরুত্ব দিয়ে দেখেনি।
মসজিদের ভেতরে পোড়া-ধ্বংসস্তূপ : শনিবার দুপুর। চারদিকে পোড়া চিহ্ন। জানালার কাচগুলো মেঝেতে গুঁড়ো হয়ে পড়ে আছে। মসজিদের এসি মেশিন ও ফ্যানগুলো বিধ্বস্ত বা বাঁকানো। একদিন আগে শুক্রবার রাতে নারায়ণগঞ্জ শহরের পশ্চিম তল্লা এলাকায় বায়তুস সালাত জামে মসজিদে যেখানে এশার নামাজের সময় ভয়ঙ্কর বিস্ফোরণ ঘটেছিল সেটি এখন যেন পোড়া-ধ্বংসস্তূপ। সরেজমিনে দেখা যায়Ñ মসজিদের বিভিন্ন অংশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়েছিল থাই জানালার কাচ, ভাঙা টাইলস, এসির বিভিন্ন সরঞ্জাম। ওই মসজিদ ঘিরে শত শত উৎসুক মানুষের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। কেউ কেউ মসজিদে এমন ভয়ঙ্কর বিস্ফোরণ ও বিপুল প্রাণহানির ঘটনায় চোখের পানি ফেলছিলেন। ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা সেখানে তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করছিলেন। মসজিদের পাশেই যেখানে পানি জমেছিল সেখান দিয়েই বুদ্বুদ আকারে গ্যাস বের হচ্ছিল। এটা দেখেও অনেকে তিতাসের স্থানীয় কর্মীদের বিরুদ্ধে কড়া সমালোচনা করছিলেন।
স্থানীয়রা জানান, প্রায় ২৮ বছর আগে চার তলা মসজিদটি নির্মাণ করা হয়। বিস্ফোরণের ঘটনার পর থেকে পশ্চিম তল্লার আশপাশের এলাকার গ্যাস সংযোগ বন্ধ রাখা হয়েছে বলে বাসিন্দাদের অভিযোগ। রান্না-খাওয়া নিয়ে ভোগান্তিতে পড়েন ওই এলাকার বাসিন্দারা।
প্রধানমন্ত্রীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারায়ণগঞ্জের বায়তুস সালাত জামে মসজিদে এসি বিস্ফোরণে হতাহতের ঘটনায় গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম শনিবার বাংলাদেশ সংবাদ সস্থাকে (বাসস) জানান, প্রধানমন্ত্রী সার্বক্ষণিক বিস্ফোরণে হতাহতদের খোঁজখবর নিচ্ছেন। দগ্ধদের সর্বোচ্চ চিকিৎসার নির্দেশ দিয়েছেন। শেখ হাসিনা বিস্ফোরণে নিহতদের রূহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। তিনি আহতদের আশু আরোগ্য কামনা করেন।
আল্লাহর ঘরে বিস্ফোরণ নরমাল মনে হচ্ছে না : ফতুল্লার পশ্চিম তল্লা এলাকার বায়তুস সালাত জামে মসজিদ পরিদর্শন করে গতকাল দুপুরে নারায়ণগঞ্জ-৪ (সিদ্ধিরগঞ্জ ও ফতুল্লা) আসনের এমপি শামীম ওসমান বলেছেন, আল্লাহর ঘর মসজিদে বিস্ফোরণ কোনো নরমাল ঘটনা মনে হচ্ছে না। ঘটনাটি নাশকতা না তাও বলা যাবে না। শামীম ওসমান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দগ্ধ সবাইকে ভালো চিকিৎসার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। এমপি শামীম ওসমান ২০০১ সালে নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়ায় দলীয় কার্যালয়ে বোমা বিস্ফোরণের বিষয়টি অস্বাভাবিক উল্লেখ করে মসজিদের এ বিস্ফোরণকেও সে রকমই হতে পারে বলে ধারণা করেন। এ কারণে ঘটনার তদন্তের বিষয়ে সরকারকে অধিক মনোযোগী এবং বিশেষজ্ঞদের দ্বারা তদন্তের আহ্বান জানান। এ সময় নিহত ও আহত ব্যক্তিদের পরিবারের পাশে থাকবেন বলে আশ^াস দেন শামীম ওসমান।
বিস্ফোরণ তদন্তে তিনটি কমিটি গঠন : বায়তুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় গতকাল জেলা প্রশাসন, ফায়ার সার্ভিস ও তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের পক্ষ থেকে পৃথক তিনটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক খাদিজা তাহেরী ববিকে আহ্বায়ক করে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওই কমিটিকে আগামী ৫ কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অপরদিকে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সর পরিচালক (অপারেশন) লে. কর্নেল জিল্লুর রহমানকে আহ্বায়ক করে চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটিকে আগামী ১০ কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া তিতাস গ্যাসের ঢাকা অফিসের মহাব্যবস্থাপক (পরিকল্পনা) আব্দুল ওহাব তালুকদারকে আহ্বায়ক করে ৫ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। এ কমিটিকে ৫ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

Related Articles

ধারাবাহিক : পলাশ রাঙা দিন

নুসরাত রীপা পর্ব-১৬ তুলির বিয়েতে মীরা আসবে না শুনে বিজুর খুব মন খারাপ । মীরাকে মায়ের কলিজা বলে মা কে ক্ষ্যাপালেও মীরাকে ও আপন বোনের মতোই...

প্রকৃতিকন্যা সিলেট- নয়নাভিরাম রাতারগুল

মিলু কাশেম অপরূপ প্রকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি আমাদের বাংলাদেশ।নদ নদী পাহাড় পর্বত হাওর বাওর সমুদ্র সৈকত প্রবাল দ্বিপ ম্যানগ্রোভ বন জলজ বন চা বাগানসহ পর্যটনের নানা...

হাওড়ে প্রেসিডেন্ট রিসোর্টের জমকালো উদ্বোধন

দুই নায়িকা নিয়ে জায়েদ খান মিশা ডিপজল রুবেল হেলিকপ্টারে চড়ে কিশোরগঞ্জের মিঠামইন হাওরে প্রেসিডেন্ট রিসোর্ট উদ্বোধন করতে এসেছিলেন চিত্রনায়ক জায়েদ খান, জনপ্রিয় খল অভিনেতা মিশা...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

22,042FansLike
0FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -

Latest Articles

ধারাবাহিক : পলাশ রাঙা দিন

নুসরাত রীপা পর্ব-১৬ তুলির বিয়েতে মীরা আসবে না শুনে বিজুর খুব মন খারাপ । মীরাকে মায়ের কলিজা বলে মা কে ক্ষ্যাপালেও মীরাকে ও আপন বোনের মতোই...

প্রকৃতিকন্যা সিলেট- নয়নাভিরাম রাতারগুল

মিলু কাশেম অপরূপ প্রকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি আমাদের বাংলাদেশ।নদ নদী পাহাড় পর্বত হাওর বাওর সমুদ্র সৈকত প্রবাল দ্বিপ ম্যানগ্রোভ বন জলজ বন চা বাগানসহ পর্যটনের নানা...

হাওড়ে প্রেসিডেন্ট রিসোর্টের জমকালো উদ্বোধন

দুই নায়িকা নিয়ে জায়েদ খান মিশা ডিপজল রুবেল হেলিকপ্টারে চড়ে কিশোরগঞ্জের মিঠামইন হাওরে প্রেসিডেন্ট রিসোর্ট উদ্বোধন করতে এসেছিলেন চিত্রনায়ক জায়েদ খান, জনপ্রিয় খল অভিনেতা মিশা...

মৎস্য খাতে অর্জিত সাফল্য ও টেকসই উন্নয়ন

ড. ইয়াহিয়া মাহমুদমৎস্যখাতের অবদান আজ সর্বজনস্বীকৃত। মোট দেশজ উৎপাদন বা জিডিপিতে মৎস্য খাতের অবদান ৩.৫০ শতাংশ এবং কৃষিজ জিডিপিতে ২৫.৭২ শতাংশ। আমাদের দৈনন্দিন খাদ্যে...

জলাশয় সংস্কারের মাধ্যমে মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে বহুগুণ

মৎস্য উৎপাদনে যুগান্তকারী সাফল্য অর্জন করেছে বাংলাদেশ। পরিকল্পনা মাফিক যুগোপযোগী প্রকল্প গ্রহণ করায় এই সাফল্য এসেছে। মাছ উৎপাদন বৃদ্ধির হারে সর্বকালের রেকর্ড ভেঙেছে বাংলাদেশ।...