পাহাড়ের সব ভাষাভাষীর সম্প্রীতি রক্ষায় কাজ করছে পার্বত্য অধিকার ফোরাম

0
22

খাগড়াছড়িতে পার্বত্য অধিকার ফোরামের গঠনতন্ত্র প্রকাশ ও কেন্দ্রীয় কার্যালয় উদ্বোধন করা হয়েছে। এ সময় সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সাংগঠনিক রাজনৈতিক অবস্থান, লক্ষ্য, উদ্দেশ্য ও কার্যক্রম তুলে ধরে সংগঠনটি। শুক্রবার সকাল ১১টায় খাগড়াছড়ির নারিকেল বাগানস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের উদ্বোধন ও সংবাদ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন পার্বত্য অধিকার ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি মাঈন উদ্দীন। পরে ফিতা কেটে আনুষ্ঠানিকভাবে কার্যালয়ের উদ্বোধন করেন নেতরা। 
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক ও মাটিরাঙ্গা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আনিসুজ্জামান ডালিম। এতে কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা এস এম হেলাল, সিনিয়র সহসভাপতি আহম্মেদ রেদোয়ান, সহসভাপতি সাহাজুল ইসলাম, জাহিদুল ইসলাম, যুগ্মসম্পাদক মোক্তাদির হোসেন, কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক পারভেজ আহম্মেদ, অর্থ সম্পাদক রবিউল হোসেন, কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক ইখতিয়ার ইমন, কেন্দ্রীয় সহদপ্তর সম্পাদক ইউনুছ  বাঙালি, কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক আহম্মেদ আলী, চট্টগ্রাম মহানগর আহ্বায়ক মাসুদ রানাসহ নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। 
এতে পার্বত্য অধিকার ফোরাম কেন্দ্রীয় সভাপতি মাঈন উদ্দীন বলেন, একটি স্বার্থানেষী মহল পার্বত্য অধিকার ফোরামের অগ্রযাত্রা রুখতে নেতাকর্মীদের জড়িয়ে মিথ্যা মনগড়া অপপ্রচার চালাচ্ছে। তারা এ সংগঠনকে কখনো বর্তমান এমপি বাবু কুজেন্দ্রলাল ত্রিপুরা, কখনো সাবেক এমপি ওয়াদুদ ভুঁইয়া আবার কখনো পার্বত্য নিউজের সম্পাদক মেহেদী পলাশের সংগঠন উল্লেখ করে চাঁদাবাজি, সন্ত্রাসী ও মিথ্যা-বানোয়াট তথ্য দিয়ে মামলা সাজিয়ে নেতাকর্মীদের রাজনীতি থেকে দূরে সরানোর ষড়যন্ত্র করছে। সংবাদ সম্মেলনে পার্বত্য অধিকার ফোরামের কোনো দলের সংগঠনের নয় উল্লেখ করে সংগঠনের উদ্দেশ্য, গঠনতন্ত্র তুলে ধরে সংগঠন সৃষ্টির পেক্ষাপট ও প্রাথমিক ঘোষণা এবং ৩৩টি ধারা, ৭৮টি উপধারা, প্রস্তাবিত ৫টি  সহযোগী অঙ্গ সংগঠন বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তুলে ধরা হয়। 
পাহাড়ে বসবাসকারী ১৩-১৫টি জনগোষ্ঠীসহ পিছিয়ে পড়া বাঙালি জনগোষ্ঠীর মধ্যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রেখে পার্বত্য অধিকার ফোরাম কাজ করছে বলে তিনি জানান। পাশাপাশি তিনি সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে বলেন, এ সংগঠন মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, স্বাধীনতা, বাংলাদেশের সংবিধান ও সার্বভৌমত্বের প্রশ্নে কখনো আপস করবে না।