Monday, September 20, 2021

জায়েদ চলচ্চিত্রের দুর্গন্ধ:-মালেক আফসারী

নিজস্ব প্রতিবেদক : চিত্রনায়ক জায়েদ খানকে চলচ্চিত্রের দুর্গন্ধ বলে মন্তব্য করেছেন মাস্টার মেকার খ্যাত নির্মাতা মালেক আফসারী। মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) এসব কথা বলেন তিনি।
তিনি বলেন, চিত্রনায়ক জায়েদ খান চলচ্চিত্রের দুর্গন্ধ। তার পতন চাই। এই চলচ্চিত্র শিল্পকে ধ্বংস করে দিচ্ছেন এই জায়েদ। মালেক আফসারী বলেন, আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ করছি। আমাদের কোনো অনুদান লাগবে না, কোনো প্রণোদনা লাগবে না। শুধু এই জায়েদ খানকে এফডিসি থেকে সরিয়ে দিন।
প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করে এ নির্মাতা বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আপনারা এই জায়েদ খানকে সহযোগিতা করবেন না। এই জায়েদ খান চলচ্চিত্রকে দুইভাগে বিভক্ত করেছেন। দয়া করে তাকে আপনারা কোনো ধরনের সুযোগ দিবেন না।
জায়েদ খানকে উদ্দেশ্য করে মালেক আফসারী বলেন, জায়েদ তুই একলা চালাক দুনিয়ায়, সবাইকে নিয়ে গেইম খেলবি। এই জায়েদ খান প্রশাসনের ভয় দেখিয়ে শিল্পীদের বাসায় থাকতে দেয়নি। দিনের পর দিন ভুক্তভোগী শিল্পীরা অন্যদের বাসায় ঘুমিয়েছে। এসকল তার অপকর্মের কারণে আজ চলচ্চিত্র শিল্পের রেশারেশি অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

চলচ্চিত্রের মেয়েদের নাঙ্গা করে দিল জায়েদ- ওমর সানী
চিত্রনায়ক ওমর সানী আবারও ক্ষোভ ঝাড়লেন বর্তমান চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে নিয়ে। চিত্রনায়ক নিরব ও ইমনের উপস্থাপনায় এক রেডিও অনুষ্ঠানে তিনি সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগরকে নিয়ে বলেন, ‘মিশা আমার বন্ধু, তার অনেকগুণ আছে, কিন্তু সে প্রচুর মিথ্যা কথা বলে। কথা কথায় বলে আমি নামাজ পড়ি, হজ করেছি। আরে আমরা কি হজ করিনি, তুই একাই নামাজ পড়িস, হজ করেছিস। তুই একটা কাপুরুষ, কাপুরুষতা কবে ছাড়বি মিশা?’
ওমর সানী এসময় জায়েদ খানের সমালোচনা করে বলেন, ফাজলামির একটা সীমা আছে। এখন শুনলে মনে হয় চলচ্চিত্র সমিতি মানেই জায়েদ খান। নিজে নিজে সিদ্ধান্ত নিয়ে বলে কমিটির সিদ্ধান্ত। এখানে তুই (উপস্থাপকের ইমনের দিকে ইঙ্গিত করে) তো উপস্থিত আছিস, তুই কমিটির মেম্বার। ১৮৪ জনকে যে বাদ দেওয়া হলো, তোর মতামত নেওয়া হয়েছে? ও নিজের সিদ্ধান্ত সবার ওপরে চাপিয়ে দেয়।
জায়েদের উদ্দেশ্যে আরও বলেন, পরকীয়া বা গুঞ্জন সব সময়ই ছিল কিন্তু এই সময়ে চলচ্চিত্রের মেয়েদের নিয়ে এতো কথা শুনতে হয়। চলচ্চিত্রের মেয়েদের নাঙ্গা করে দিল এই ছেলেটা। একে স্যাক (বহিষ্কার) করা উচিৎ।
সানী বলেন, আমার শ্যালিকা ইরিন জামানের সদস্যপদ বাতিল করা হলো। আমি মিশাকে বললাম, ইরিনের ব্যাপারটা দেখতে। সে আমাকে বলে আমি তো জানি না, তুই একটু সেক্রেটারির (জায়েদ খান) সাথে কথা বল। আরে ব্যাটা আমি কেন তোর সেক্রেটারির সাথে বলবো?
ওমর সানী বলেন, মিশা আমাদের ফ্রেন্ড সার্কেলের অথচ একটা সভাপতি পদের জন্য সে কি রকম লালায়িত। আসলে এটা ওর কাছে আশা করি না। ১৮৪ জনকে কেন সদস্যপদ থেকে সরানো হলো এই প্রশ্ন করতে সে নির্বিকারভাবে বলল আমি জানি না, এই রকম কাপুরুষতা করে সে।

আমি মুখ খুললে জায়েদ মুখ দেখাতে পারবে না- পপি
চিত্রনায়িকা পপি আক্রান্ত হয়েছিলেন করোনায়। চলচ্চিত্রের প্রাণকেন্দ্র এফডিসি উত্তাল রয়েছে মিশা-জায়েদ বয়কট নিয়ে। নিজের শারীরিক অবস্থা ও এফডিসির উত্তাল পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেছেন পপি।
বলেন ‘আগে কত সুন্দর দিন কাটাচ্ছিলাম আমরা। মান্না ভাই, ওমর সানী ভাই, রিয়াজ, ফেরদৌস, শাকিব খান, মৌসুমী, শাবনূর, পূর্ণিমা, সবাই নিজ নিজ অবস্থান থেকে ইন্ডাস্ট্রিকে লিড দিয়েছেন।
তখন আমাদের মধ্যে ভালো কাজের প্রতিযোগিতা থাকলেও কারও সঙ্গে কোনো রেষারেষি ছিল না। কেউ কারও পেছনে লাগেনি। কারও আড়ালে কারও বদনাম হতো না। সেই গোছানো সম্পর্কগুলো নষ্ট করে দিলো জায়েদ। সে শিল্পী সমিতির চেয়ারে বসার পরই শুরু হলো একে অপরে দ্বন্দ্ব। অযোগ্য লোককে চেয়ারে বসালে যা হয়। এর-ওর মধ্যে বিরুদ্ধে লাগিয়ে সবাইকে ব্যস্ত বানিয়ে নিজে চেয়ারের জায়গাটা শক্ত করে নিতে চাচ্ছিলো সে। কিন্তু অযোগ্য লোক বেশিদিন থাকতে পারে না। তার পতন হবেই।
সমিতির নেতার চেয়ারে বসে সে যে ক্রাইমগুলো করেছে তা বর্ণনাতীত। সে ক্রাইমের অনেক কিছুই অনেকে জানে না। সেগুলো বলার মতোও না। তাই বলি, আমি যদি জায়েদের বিষয়ে মুখ খুলি তাহলে সে মুখ দেখাতে পারবে না। শুধু বলবো, যার একটাও হিট ছবি নেই, অভিনেতা হিসেব দর্শকরা যাকে চিনেই না, সেই কিনা রিয়াজ, ফেরদৌস ভাইকে নিয়ে কটু কথা বলে। তাদের নিয়ে সমালোচনা করে। ওমর সানী ভাইকে সে মানসিক ডাক্তার দেখাতে বলে। তার অনেক কিছুর সাক্ষী আমি…
নির্বাচন নিয়ে পপি আরও বলেন, দুই দশক ধরে কাজ করে যাচ্ছি। ইন্ডাস্ট্রির অনেক উত্থান-পতনের সাক্ষী আমি। কম সামর্থ্যবান অনেক শিল্পীর পরিবারের কারও বিয়ে, অসুস্থতা এসব মিলিয়ে বহু মানুষকে সাহায্য করেছি। কিন্তু কখনও শো-অফ করিনি। কাজের বাইরে অন্যকিছু নিয়ে প্রচারে আসতে চাইনি। এই ইন্ডাস্ট্রির মানুষের কাছে আমি লাখ লাখ টাকা পাব। তাদের থেকে কখনো প্রেসার দিয়ে টাকা নেইনি। শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানের তত্ত্বাবধানে বহু শো করেছি পুলিশ, র‌্যাবের। বিভিন্ন অজুহাতে ওইসব শো-এর পারিশ্রমিক আমার কাছে আসেনি। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যের সম্মান দেখিয়ে অন্যান্য কর্পোরেট শো থেকেও অনেক কম পারিশ্রমিক দেয়ার কথা থাকে। নামমাত্র যাতায়াত এবং ড্রেস ও নৃত্যশিল্পী যারা থাকে, তাদের খরচটাই শুধু দেয়ার কথা থাকে। কিন্তু এই টাকাগুলো জায়েদের তত্ত্বাবধানে থাকত। সে সবকিছু অ্যারেঞ্জ করত। সে সবের একটি টাকাও আমার হাতে আসেনি। আমি টাকা চাইলে জায়েদ একেক সময়, একেক টাল-বাহানা করত। বলত- পুলিশ, র‌্যাব তাদের কাছে টাকা চাওয়া যায় না, আবার বলেছে পরে পৌঁছে দেবে। সেসব কোনোকিছুই আমার হাতে আসেনি। এসব টাকা জায়েদ কী করেছে আমার জানা নেই।

 

Related Articles

ধারাবাহিক : পলাশ রাঙা দিন

নুসরাত রীপা পর্ব-১৬ তুলির বিয়েতে মীরা আসবে না শুনে বিজুর খুব মন খারাপ । মীরাকে মায়ের কলিজা বলে মা কে ক্ষ্যাপালেও মীরাকে ও আপন বোনের মতোই...

প্রকৃতিকন্যা সিলেট- নয়নাভিরাম রাতারগুল

মিলু কাশেম অপরূপ প্রকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি আমাদের বাংলাদেশ।নদ নদী পাহাড় পর্বত হাওর বাওর সমুদ্র সৈকত প্রবাল দ্বিপ ম্যানগ্রোভ বন জলজ বন চা বাগানসহ পর্যটনের নানা...

হাওড়ে প্রেসিডেন্ট রিসোর্টের জমকালো উদ্বোধন

দুই নায়িকা নিয়ে জায়েদ খান মিশা ডিপজল রুবেল হেলিকপ্টারে চড়ে কিশোরগঞ্জের মিঠামইন হাওরে প্রেসিডেন্ট রিসোর্ট উদ্বোধন করতে এসেছিলেন চিত্রনায়ক জায়েদ খান, জনপ্রিয় খল অভিনেতা মিশা...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

22,042FansLike
0FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -

Latest Articles

ধারাবাহিক : পলাশ রাঙা দিন

নুসরাত রীপা পর্ব-১৬ তুলির বিয়েতে মীরা আসবে না শুনে বিজুর খুব মন খারাপ । মীরাকে মায়ের কলিজা বলে মা কে ক্ষ্যাপালেও মীরাকে ও আপন বোনের মতোই...

প্রকৃতিকন্যা সিলেট- নয়নাভিরাম রাতারগুল

মিলু কাশেম অপরূপ প্রকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি আমাদের বাংলাদেশ।নদ নদী পাহাড় পর্বত হাওর বাওর সমুদ্র সৈকত প্রবাল দ্বিপ ম্যানগ্রোভ বন জলজ বন চা বাগানসহ পর্যটনের নানা...

হাওড়ে প্রেসিডেন্ট রিসোর্টের জমকালো উদ্বোধন

দুই নায়িকা নিয়ে জায়েদ খান মিশা ডিপজল রুবেল হেলিকপ্টারে চড়ে কিশোরগঞ্জের মিঠামইন হাওরে প্রেসিডেন্ট রিসোর্ট উদ্বোধন করতে এসেছিলেন চিত্রনায়ক জায়েদ খান, জনপ্রিয় খল অভিনেতা মিশা...

মৎস্য খাতে অর্জিত সাফল্য ও টেকসই উন্নয়ন

ড. ইয়াহিয়া মাহমুদমৎস্যখাতের অবদান আজ সর্বজনস্বীকৃত। মোট দেশজ উৎপাদন বা জিডিপিতে মৎস্য খাতের অবদান ৩.৫০ শতাংশ এবং কৃষিজ জিডিপিতে ২৫.৭২ শতাংশ। আমাদের দৈনন্দিন খাদ্যে...

জলাশয় সংস্কারের মাধ্যমে মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে বহুগুণ

মৎস্য উৎপাদনে যুগান্তকারী সাফল্য অর্জন করেছে বাংলাদেশ। পরিকল্পনা মাফিক যুগোপযোগী প্রকল্প গ্রহণ করায় এই সাফল্য এসেছে। মাছ উৎপাদন বৃদ্ধির হারে সর্বকালের রেকর্ড ভেঙেছে বাংলাদেশ।...